20 Feb

দুটি অণু গল্প

লিখেছেন:সমীর ঘোষ


খবর

রাত ন’টার ‘দেশের খবর’ পড়ে নিউজ ফ্লোর থেকে চিফ অ্যাংকার হন্তদন্ত হয়ে সোজা চলে গেলেন নিউজ এডিটরের রুমে। হাতে ধরা এক তাড়া প্রিন্টেড নিউজ স্ক্রিপ্ট। সেগুলো কিছুটা ক্ষোভের সঙ্গে টেবিলে আওয়াজ করে রেখে দিয়ে বললেন –  সেই একই খবর রোজ রোজ। খুন – শ্লীলতাহানি – ধর্ষন আর অনার কিলিং। একটাও ভাল নিউজ নেই ? চিফ প্রোডিউসারকেও জানিয়েছি, আপনাকেও ইনফর্ম করলাম –  কাল যা খবর ছিল, আজও তাই। এটা কেমন করে সম্ভব?

সুন্দরী চিফ অ্যাংকারের উত্তেজনায় একটুও বিচলিত না হয়ে ঠোটের কোনে হাসি ঝুলিয়ে রেখে নিউজ এডিটর বললেন – ছাপা কাগজগুলো আপনার কাছেই রেখে দিন, ওগুলো  আগামীকালেরও খবর।

 

প্রতিবেশী 

সি-বিচে দেখা হতেই চিনতে পারল আমার বউ। বলল ওই দেখ, দাসবাবু

আমি বললাম, দাসবাবুটা আবার কে?

আরে চিনতে পারছ না? আমাদের পাশের ফ্ল্যাট গো?  রোজ বর-বউ-এ ফাটাফাটি হয়। ঋক আর রিতানের বাবা। চলো গিয়ে কথা বলি।বিদেশ-বিভূঁই-এ যদি কোন সমস্যা হয়। তবুও তো পাশের ঘরের লোক।

না না সে সবে কাজ নেই। ময়লা ফেলা নিয়ে ঝামেলার কথা মনে নেই তোমার? তাছাড়া ওরা তো কথা বলা বন্ধই করে দিয়েছে…

নিজেদের মধ্যে তৈরি হওয়া এরকম একটা দোটানার মধ্যেই দেখলাম দাসবাবু নিজেই দেখতে পেয়ে এগিয়ে আসছেন আমাদের দিকে। সঙ্গে বউ সানা। একমুখ হাসি হেসে বললেন কবে এলেন এখানে ? থাকবেনই বা ক’দিন?

এলাকার বাইরে চেনা মুখ দেখলে কেমন আপনজন আপনজন মনে হয়। দিন কয়েক বেশ কেটে গেল। সি-বিচ-এ আমরা ওদের চা খাওয়ালাম,ওরা আমাদের মাছভাজা খাওয়াল। আমরা বাচ্চাদের ঝিনুকের খেলনা দিলাম, ওরা দিল কানের দুল।

ক দিনের ট্যুর শেষ করে দাসবাবুদের দুদিন পরেই বাড়ি ফিরলাম আমরা। তারও দিনদুয়েক পরে হঠাৎ ফ্ল্যাটের দড়জায় দাসবাবুর মুখোমুখি পড়ে গেলাম। ট্যুরে গিয়ে সম্পর্কের বরফ গলা শুরু হওয়ায় আমি সৌজন্য দেখিয়ে হাসতে চেস্টা করলাম। কিন্তু আমার উপস্থিতিকে বিন্দুমাত্রপাত্তানা দিয়ে সজোরে দড়জা বন্ধ করে দিলেন দাসবাবু।

খুব বিরক্ত অপমানিত হয়ে ব্যাপারটা খুলে বললাম বউকে। সে বলল গতকালই নাকি আমাদের ঘরের কাছ ঘেঁসে ময়লা ফেলার বিন-টা রেখে দিয়েছিল সানা। ঠিক আগের মত। ফ্ল্যাটে থাকার মিনিমাম কারসি টুকু জানেনা ?তাই সে শুনিয়ে দিয়েছে দু-চারকথা। দাসবাবুর দড়াম করে দড়জা বন্ধের কারণটা বুঝতে পেরে আমি আরও জোরে বন্ধ করে দিলাম আমাদের দড়জাটা। যাতে আওয়াজটা ওরা শুনতে পায়।

 

Tags: , ,

 

 

 




  • খোঁজ করুন

  • পুরানো সংখ্যা




  • আমাদের ফেসবুক পেজ

  • মতামত

    আপনার মন্তব্য লিখুন

    আপনার ইমেল গোপনীয় থাকবে।




    Notify me when new comments are added.

    যোগাযোগ


    email:galpersamay@gmail.com

    Your message has been sent. Thank you!

    গল্পের সময় পরিবার
    সমীর
    অগ্নীশ্বর
    দেবাশিস
    চিন্ময়
    পার্থ
    মিতালি
    জাগরণ
    দেবব্রত

    © 2016 গল্পের সময়। ডিজাইন করেছেন অগ্নীশ্বর। নামাঙ্কন করেছেন পার্থ